1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
  3. [email protected] : lalashimul :
রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১, ১২:১৪ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
সৌদিতে মিলল ল্যান্ডিং অনুমতি, দ্বিতীয় দিনে ১২ বিশেষ ফ্লাইট চালু হচ্ছে দেশের সবচেয়ে বড় করোনা হাসপাতাল রাষ্ট্রীয় আয়োজনে সেন্ট জর্জেস চ্যাপেলে সমাহিত প্রিন্স ফিলিপ লকডাউনের পঞ্চম দিনে প্রধান সড়কে ভিড় কম, ভিড় অলিগলিতে চলে গেলেন বর্ষীয়ান অভিনেতা এস এম মহসীন মুগদা হাসপাতালের ১১তলা থেকে লাফিয়ে করোনা রোগীর আত্মহত্যা করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত ব্যক্তির ‘কবর খুঁড়ে খুঁড়ে ক্লান্ত গোরখোদকরা’ বাঁশখালীতে শ্রমিক হত্যায় বিচার বিভাগীয় তদন্ত চাই : বাম ঐক্য ফ্রন্ট করোনা প্রতিরোধের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার পাশাপাশি সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে পরাজিত করা হবে হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে চাচার হামলায় ভাতিজা আহত

আজ ফিরছেন সেন্টমার্টিনে আটকে পড়া পর্যটকরা

রিপোর্টার
  • আপডেট : রবিবার, ২৫ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৭৭ বার দেখা হয়েছে

কক্সবাজার প্রতিনিধি
সেন্টমার্টিনে বেড়াতে গিয়ে বৈরী আবহাওয়ার কারণে আটকে পড়া পাঁচ শতাধিক পর্যটক আজ ফিরছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় রবিবার পর্যটকবাহী জাহাজে চড়ে কক্সবাজার ফিরবেন তারা। এরপর সেখান থেকে নিজস্ব গন্তব্যে রওনা হবেন এসব পর্যটক।

গত বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সেন্টমার্টিনে প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়। সাগর হয়ে ওঠে উত্তাল। আবহাওয়া অফিস হুঁশিয়ারি সংকেত দেয়ার পর বুধবার থেকে কক্সবাজার টেকনাফ সেন্টমার্টিন সমুদ্র পথে সব ধরনের ট্রলার ও জাহাজ চলাচল বন্ধ করে দেয় প্রশাসন। এর ফলে কক্সবাজারের সঙ্গে সেন্টমার্টিন দ্বীপের যোগাযোগ হঠাৎ করে বন্ধ হয়ে যায়। এ কারণে বুধবার বা তার আগের দিন সেন্টমার্টিনে বেড়াতে যাওয়া পাঁচ শতাধিক পর্যটক সেখানে আটকা পড়েন।

কক্সবাজার আবহাওয়া কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, আবহাওয়া স্বাভাবিক হওয়ায় কক্সবাজারের উপকূলে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত উঠিয়ে নেয়া হয়েছে। নাফনদী ও সমুদ্র শান্ত রয়েছে। ফলে মাছ ধরার ট্রলারসহ সব ধরনের নৌযানকে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিএ’র চট্টগ্রাম অঞ্চলের উপপরিচালক নয়ন শীল বলেন, আবহাওয়া স্বাভাবিক হওয়ায় নৌপথে জাহাজ চলাচলের অনুমতি দেয়া হয়েছে। আজ পরিস্থিতি ভালো থাকলে কক্সবাজার থেকে পর্যটকবাহী জাহাজ সেন্টমার্টিনে যাবে। ওই জাহাজে করে দ্বীপে আটকে পড়া পর্যটকরা ফিরবেন।

সেন্টমার্টিন দ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. নূর আহমেদ বলেন, আটকে পড়া পর্যটকদের নিয়ে যাওয়ার জন্য কক্সবাজার থেকে পর্যটকবাহী জাহাজ আসার কথা রয়েছে। রবিবার বিকেলে সেন্টমার্টিন ত্যাগ করবেন তারা। এদিকে টেকনাফে আটকে পড়া দ্বীপের বাসিন্দারও ফিরতে পারবেন।

টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, ফের জাহাজ চলাচল শুরু হলে দ্বীপে আটকে পড়া পর্যটকদের ফেরত আনা হবে।

পর্যটকবাহী কর্ণফুলী এক্সপ্রেস জাহাজের কক্সবাজারের ব্যবস্থাপক হোসাইন ইসলাম বাহাদুর বলেন, বৈরী আবহাওয়া কেটে যাওয়ায় রবিবার পর্যটকবাহী জাহাজ সেন্টমার্টিন যাবে। ফেরার পথে দ্বীপে আটকা পড়া পর্যটদের নিয়ে আসা হবে।

সেন্টমার্টিন পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই (উপপরিদর্শক) মো. তারেক মাহামুদ বলেন, বেড়াতে এসে বৈরী আবহাওয়ার কারণে দ্বীপে আটকে পড়া পর্যটকদের সার্বক্ষণিক খোঁজ রাখা হচ্ছে। তারা সবাই নিরাপদে আছেন। রবিবার জাহাজ চলাচল করলে পর্যটকরা দ্বীপ ত্যাগ করবেন।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি