1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ১১:৩১ অপরাহ্ন

আশুলিয়ায় দুই পক্ষ সংঘর্ষ, মূল হোতা আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৪ মার্চ, ২০২১
  • ৮১৮ বার দেখা হয়েছে
শিল্পাঞ্চল আশুলিয়ায় অবৈধভাবে  ঝুট ব্যবসা দখলের উদ্দেশ্য ধামসোনা ইউনিয়ন ৬নং ওয়ার্ড মেম্বর সাদেক হোসেন ভূইয়া ও  তার ছেলে ঝুট সন্ত্রাসী  মনির সর্মথকদের হামলায় ,  আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহবায়ক মোঃ কবির হোসেন সরকারের  ১০জন কর্মী আহত হয়েছেন , তার মধ্যে ৪ জনের অবস্থা গুরুত্বর ।এছাড়াও যুবলীগ কর্মীদের ব্যবহৃত বেশ কিছু মটরসাইকেল ভেঙ্গে গুড়িয়ে দেয় হামলাকারিরা।   এ ঘটনায় কবির হোসেন সরকারের ম্যানেজার মোঃ সেলিম হোসেন বাদী হয়ে ৯ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ৭০/৮০ জন অজ্ঞাতনামীয় ব্যাক্তিদের বিরুদ্ধে আশুলিয়া থানায়  মামলা  দায়ের করেন । অভিযান চালিয়ে সন্ত্রাসী হামলার মূল অভিযুক্ত মোঃ মনির ভূইয়াকে গ্রেফতার করে বুধবার সকালে  আদালতে সোপর্দ করেছে পুলিশ  ।
এ বিষয়ে ইউপি সদস্য সাদেক ভূইয়ার সাথে  যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।
যুবলীগ নেতা কবিরের সরকার জানান, ‘ইপিজেডের এক্সপেরিয়েন্স ফ্যাক্টরিতে আমার বৈধ ব্যবসা। সোমবার সকালে  আমার লেবাররা ফ্যাক্টরিতে কাজ করতে গেলে বের করে দেয় (ইউপি সদস্যের)সাদেক ভূইয়ার  ছেলে মনির ভূইয়া।
‘মঙ্গলবার  সকালে আমার ম্যানেজার সহ ৮-১০ জন পোলাপান নিয়ে ফ্যাক্টরিতে ভাদাইলের রাস্তা দিয়ে রপ্তানি যাচ্ছিল।এসময় মনির ভূইয়া মাইকে ডাকাত ঘোষনা দিয়ে  পিছন দিক থেকে অতর্কিত  হামলা চালিয়ে ৪  জনকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করেছে। তারা নারী ও শিশু হাসপাতালে ভর্তি আছে।
সিসিটিভি ফুটেজে  যায় যে, কয়েকটি মোটরসাইকেলে করে বেশ কয়েকজন ব্যক্তি ওই এলাকা দিয়ে যাওয়ার সময় হঠাৎ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তাদের ওপর হামলা করে একটি দল। ভাঙচুর করা হচ্ছে  মোটরসাইকেল।ধারালো অস্ত্র নিয়ে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে কয়েকজনকে। খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয় ।  সংঘর্ষের পর ঘটনাস্থল থেকে ক্ষতিগ্রস্থ   মোটরসাইকেলগুলো জব্দ করে আশুলিয়া থানা পুলিশ।
বক্তব্যের জন্য সাদেক ভুইয়াকে  না পাওয়া গেলেও কথা হয় তার ছেলে মনির ভূঁইয়ার সঙ্গে, তিনি জানান, ‘ঢাকা ইপিজেড জোনের ভিতরে আমার ওয়েস্টেজ ব্যবসা ।  আমার দুইজন কর্মী ওয়েস্টেজ ভরার জন্য ইপিজেডের গেটে যায়। ওই জায়গায় কবির সরকারের লোকজন চরাও হইয়া আমার ছেলেদের উপর আক্রমণ করছে।  তখন এলাকায় পারিবারিক মসজিদ থেকে ‘ডাকাত পড়েছে’ বলে ঘোষণা দেয়া হয়।এসময় এলাকাবাসী এসে তাদেরকে প্রতিহত করে ।
আশুলিয়া থানার পুলিশ  পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ জিয়াউল ইসলাম জানান,  আশুলিয়ার ভাদাইল এলাকায় মঙ্গবার সকাল ৯টার দিকে  এ সংঘর্ষের  ঘটনা ঘটে ,এ ঘটনায় আহতদের পক্ষথেকে মামলা দায়ের করা হয়েছে । তদন্তের পাশাপাশি  মামলার প্রধান অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করা  হয়েছে এবং সেইসাথে বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে  বলে জানান তিনি।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি