1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৬:৫১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
বর্তমানে আক্রান্তদের ২০ শতাংশেরই ওমিক্রন শুরুর আগেই বিপিএলে করোনার হানা রজনীকান্ত মেয়ের সঙ্গে সংসার ভাঙল ধনুশের জনসেবা নিশ্চিতে ডিসিদের ২৪ নির্দেশনা প্রধানমন্ত্রীর সেবা নিতে এসে মানুষ যেন হয়রানির শিকার না হয় : প্রধানমন্ত্রী শাবিপ্রবিতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের আশ্বাস দিলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৫৮ আবারও বিচারকাজ ভার্চুয়ালি হবে : প্রধান বিচারপতি একদিনে আরও পাঁচ হাজার মৃত্যু, শনাক্ত পৌনে ২০ লাখ আবারও ইনফিনিক্সের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর তানজিন তিশা শুটিং নয় বাস্তবে হাউমাউ করে কাঁদলেন রিয়াজ! নাঈমুর রহমান দুর্জয় করোনায় আক্রান্ত পশ্চিম আফগানিস্তানে ভূমিকম্পে নিহত ২৬ ডিএমপির ১১ কর্মকর্তাকে বদলি ফায়ার সার্ভিসের ১৩ কর্মকর্তার পদোন্নতি

ইসলামের ভ্রাতৃত্ব ও মূল্যবোধের সঠিক প্রচার ও প্রসারের লক্ষ্যে বর্তমান সরকার নানাবিধ পদক্ষেপ নিয়েছেন: ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট : রবিবার, ১৩ জুন, ২০২১
  • ১৩৪ বার দেখা হয়েছে

ঢাকা ওআইসি ইয়ূথ ক্যাপিটাল  ২০২০ উপলক্ষ্যে আয়োজিত আন্তর্জাতিক ক্বিরাত প্রতিযোগীতার চূডান্ত পর্ব  ধর্ম প্রতিমন্ত্রী মো: ফরিদুল হক খান এমপি বলেছেন, ইসলামের ভ্রাতৃত্ব ও মূল্যবোধের সঠিক প্রচার ও প্রসারের লক্ষ্যে বর্তমান সরকার নানাবিধ পদক্ষেপ নিয়েছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ইসলামের নামে জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে অনেক আগেই জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করেছেন। আর তাই  উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে ইসলামের ‘প্রকৃত মর্মবাণী’ প্রচার করার লক্ষ্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে ৫৬০ টি মডেল মসজিদ নির্মাণ করছেন যার মধ্যে সম্প্রতি প্রাথমিক পর্যায়ে ৫০ টি মডেল মসজিদ উদ্বোধন করা হয়েছে। এসব মসিজিদে  প্রতি বছর ১৪ হাজার হাফেজে-কোরআন হিফজ করার সুযোগ পাবে

প্রতিমন্ত্রী  আজ (১৩ জুন, রবিবার) দুপুর ২ টায় ঢাকা ওআইসি ইয়ূথ ক্যাপিটাল  ২০২০ উপলক্ষ্যে আয়োজিত আন্তর্জাতিক ক্বিরাত প্রতিযোগীতার চূডান্ত পর্বে ভার্চুয়ালী অংশ নিয়ে প্রধান অতিথিরি বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

ধর্ম প্রতিমন্ত্রী বলেন, আন্তর্জাতিক এই কুরআন প্রতিযোগিতার মাধ্যমে ইসলামের সুমহান শিক্ষা অর্জনে তরুণ সমাজ অনেক বেশি অনুপ্রাণিত হবে। ইসলাম শান্তি,সাম্য ও ঐক্যের কথা বলে। এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে প্রতিযোগিতায় অংশগ্রণকারীরা ইসলামের শান্তির বার্তা সারা পৃথিবীব্যাপী ছড়িয়ে দিতে সক্ষম হবে ।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ভার্চুয়ালী যুক্ত হয়ে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো: আখতার হোসেন বলেন, মুজিবর্ষ ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের এই শুভক্ষণে আন্তর্জাতিক এই কুরআন প্রতিযোগিতার অংশ হতে পারা বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত মর্যাদা ও গৌরবের।

স্বাগত বক্তব্যে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক বলেন, কোভিড ১৯ পরিস্থিতিতে ঢাকা ওআইসি ইয়ূথ ক্যাপিটাল  ২০২০ উপলক্ষ্যে আয়োজিত আন্তর্জাতিক ক্বিরাত প্রতিযোগীতাটি অত্যন্ত সফলভাবে আয়োজন করা গেছে। আর সেই জন্য এই আয়োজনের সাথে সম্পৃক্ত সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন মহাপরিচালক।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: নূরুল ইসলাম পিএইচ.ডি৤ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ইসলামিক কো-অপারেশন ইয়ূথ ফোরাম (ICYF) এর প্রেসিডেন্ট মি. তাহা আইহানসহ ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং বিশিষ্ট ওলামায়ে কেরামগণ  ভার্চুয়ালী সংযুক্ত ছিলেন ।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মুকাররম মিলনায়তন থেকে বাংলাদেশ অঞ্চলের সম্মানিত ৩জন বিচারক ও ইসলামিক কো-অপারেশন ইয়ূথ ফোরাম (ICYF) কর্তৃক নির্বাচিত বিচারক মি. ইয়াসার চোহাদার তুরস্ক থেকে ভার্চুয়ালী  অংশ নিয়ে প্রতিযোগিতার বিচারকাজ সম্পন্ন করেন৤ সারা বিশ্বের ৬টি অঞ্চল যথাক্রমে বাংলাদেশ, এশিয়া, আফ্রিকা, মধ্যপ্রাচ্য, আমেরিকা, ইউরোপ, ওশেনিয়া থেকে নির্বাচিত ১৫ জন প্রতিযোগী চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায  অংশগ্রহণ করেন৤ সারা বিশ্বের প্রায় ৪ শত জন প্রতিযোগি উক্ত প্রতিযোগীতায় অংশ নেন। তাদের মধ্য থেকে  চূড়ান্তভাবে তিনজন প্রতিযোগীকে আজ বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করেন ইরানের হাফেজ ক্বারী আলী রেজা ভিজানিয়াভাল , ২য় স্থান অর্জন করেন বাংলাদেশের হাফেজ মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান  এবং ৩য় স্তান অর্জন করেছেন তুরস্কের হাফেজ ইয়েফ এনছার কিলী। বাংলাদেশ থেকে মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান, মাসউদ রিদওয়ান ও আমানউল্লাহ আল কাফি এই তিনজন প্রতিযোগী চূড়ান্ত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন৤

উল্লেখ্য, গত ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ খ্রি. তারিখে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে ভার্চুয়ালী আন্তর্জাতিক পর্যায়ে উক্ত প্রতিযোগিতা উদ্বোধন করা হয়৤ আইসিওয়াইএফ সচিবালয় এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশন এই বাছাই প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করার জন্য একটি জুরি বোর্ড গঠন করে। স্বাগতিক দেশ হিসেবে বাংলাদেশের প্রতিযোগিতাটি ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও ইসলামিক ফাউন্ডেশন পরিচালনা করেছে।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি