1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
  3. [email protected] : lalashimul :
রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ০২:৪৬ অপরাহ্ন

কষ্টিপাথরে পরীক্ষিত দূরদর্শী মানবিক নেতৃত্বের নাম শেখ হাসিনা

রিপোর্টার
  • আপডেট : মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৪১ বার দেখা হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক : আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সময়ের কষ্টিপাথরে পরীক্ষিত এক দূরদর্শী ও মানবিক নেতৃত্বের নাম শেখ হাসিনা।
মঙ্গলবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদ আয়োজিত আলোচনা সভা ও বই বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্মদিন উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, শেখ রাসেল জাতীয় শিশু-কিশোর পরিষদের সব সদস্য সমৃদ্ধ বাংলাদেশ নির্মাণের অগ্রযাত্রায় সম্পৃক্ত থাকবে। বঙ্গবন্ধু পরিবার মেধা, সাহস ও সততার প্রতীক, সরকারপ্রধান হয়েও অতিসাধারণ জীবনযাপন তাকে করে তুলেছে অসাধারণ একজন। তার সন্তানদের গড্ডালিকা প্রবাহে গা ভাসাতে দেননি। সরকারপ্রধানের সন্তান বলে কোনো প্রশ্রয় পাননি, সৃষ্টি করেনি হাওয়া ভবন।
তিনি বলেন, বিএনপি নিজেদের রাজনৈতিক ইস্যু না পেয়ে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে মাঠ গরমের ব্যর্থ চেষ্টা করে। দেশ দুঃসময় পার করছে না, দুঃসময় পার করছে বিএনপি। বিএনপি সাম্প্রদায়িক চেতনা লালন করে।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সভাপতি মাহমুদুস সামাদ চৌধুরী, সদস্য সচিব কে এম শহিদুল্লাহ, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া।
পৃথক অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, জনগণের বারবার ম্যান্ডেট নিয়েছেন শেখ হাসিনা। একে একে বাস্তবায়নে রূপ দিচ্ছেন জাতির পিতার স্বপ্ন। তিনি যতদিন থাকবেন, পথ হারাবে না বাংলাদেশ।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমি যখনই বিদেশে গিয়েছি, আমাকে শুনতে হয়েছে তোমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চাবিটা কী? কীভাবে এত দ্রুত এগিয়ে নিয়েছেন। আমি বলেছি তার ধমনীতে বঙ্গবন্ধুর রক্ত প্রবাহিত। তিনি দেশকে ভালোবাসেন দেশের মানুষকে ভালোবাসেন, সেটিই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার তার মূলশক্তি। যেখানে বাংলাদেশের মানুষ প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শেখ হাসিনাকে চার-চারবার নির্বাচিত করেছেন। কোনো সিদ্ধান্তে তিনি ব্যর্থ হননি। সব সিদ্ধান্তে সফলতা পেয়েছেন। রোহিঙ্গাদের আসতে অনুমতি দিয়েছেন। তিনি বলেছিলেন, ১৭ কোটি মানুষ যদি খাবার পায় তবে রোহিঙ্গারাও পাবে। যে কারণে আজ তিনি বিশ্ব মানচিত্রে মাদার অব হিউমিনিটি।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি