1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
সোমবার, ১৮ অক্টোবর ২০২১, ০১:৩৯ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
কর্মীদের জন্য কোটি টাকার ডুপ্লেক্স ফ্ল্যাট ভাড়া নিলেন সালমান সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে পরাজিত করতে হবে: কাদের আইয়ুব বাচ্চুর প্রয়াণ দিবসে আবেগঘন গিটার বাজালেন ছেলে নোয়াখালীতে সহিংসতায় ১৮টি মামলা, আসামি ৫ হাজার আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দামে রেকর্ড সরকারি সফরে সাউথ কোরিয়ায় সেনাপ্রধান শহীদ শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন আজ বিশ্বে করোনায় দৈনিক মৃত্যুর সংখ্যা আরও কমেছে অতীশ দীপঙ্কর ইউনিভার্সিটি মাস্টার্স অব পাবলিক হেলথ (এম.পি.এইচ) প্রোগ্রামের নবীন বরণ অনুষ্ঠিত যুবরাজ সিং গ্রেপ্তার ২০ বছর পর ফের একসঙ্গে সানি-আমিশা জুটি রাশিয়ায় করোনা সংক্রমণে রেকর্ড, তবু লকডাউনে ‘না’ ইরানি তেল ট্যাঙ্কার দখলের চেষ্টা জলদস্যুদের, প্রতিহত করল আলবর্জ ডেস্ট্রয়ার ‘আইএসআই-প্রধান নিয়োগ-জটিলতার অবসান হবে শুক্রবার’ গোপনে’ হাইপারসনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালাল চীন, অবাক যুক্তরাষ্ট্র

কৃষকদের সমর্থনে কংগ্রেসের মিছিলে লাঠিচার্জ-জলকামান

রিপোর্টার
  • আপডেট : শনিবার, ২৩ জানুয়ারী, ২০২১
  • ১৩২ বার দেখা হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক :
এলোপাথাড়ি লাঠিচার্জ, মুহুর্মুহু জলকামানের সঙ্গে কাঁদানে গ্যাস। কংগ্রেসের কৃষি আইন বিরোধী মিছিল ঘিরে ব্যাপক লাঠিচার্জ। পুলিশের লাঠিচার্জে আহত হয় বহু কংগ্রেস সমর্থক। ধস্তাধস্তিতে আহত হয়েছেন বেশ কয়েক জন পুলিশকর্মীও। শান্তিপূর্ণ মিছিলে দলের সমর্থকদের প্রতি পুলিশের এই আচরণের নিন্দা জানিয়েছে কংগ্রেস।

বিতর্কিত কৃষি আইনের বিরোধিতায় এবং আন্দোলনকারী কৃষকদের সমর্থনে ভারতের মধ্যপ্রদেশে দু’সপ্তাহব্যাপী প্রতিবাদ কর্মসূচির ঘোষণা করেছে কংগ্রেস।

এরই অংশ হিসেবে শনিবার রাজধানী ভোপালে হাজার হাজার সমর্থকদের নিয়ে মিছিলে নামে কংগ্রেস। তাতে নেতৃত্ব দেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী কমল নাথ।
সকালে প্রথমে জওহর চকে কংগ্রেস সমর্থকরা জড়ো হয়ে রাজভবনের উদ্দেশে রওনা দেন। পরিকল্পনা ছিল, রাজ্যপাল আনন্দীবেন পটেলের বাসভবন ঘেরাও করে বিতর্কিত আইন তিনটি প্রত্যাহারের দাবি জানানো। সেই মতো বাসে চেপে দলীয় নেতৃত্বের সঙ্গে মিছিলে নেতৃত্ব দিতে দেখা যায় কমলনাথকে।

কিন্তু রাজভবনে যাওয়ার অভিমুখে মিছিল আটকে দেয় পুলিশ। ফিরে না গেলে বলপ্রয়োগ করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়। কিন্তু ব্যারিকেড ঠেলে এগোনোর চেষ্টা করে মিছিল। তাতেই কংগ্রেস সমর্থকদের উপর জলকামান প্রয়োগ করে পুলিশ। ভিড় ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাসের শেলও ফাটানো হয়। সেই সঙ্গে শুরু হয় এলোপাথাড়ি লাঠিচার্জ।

পুলিশের এই আচরণের তীব্র নিন্দা করেছে কংগ্রেস। তাদের দাবি, স্থানীয় প্রশাসনের কাছ থেকে অনুমতি নিয়ে মিছিল বের করা হয়েছিল।

কেন্দ্রীয় আইনের বিরুদ্ধে দিল্লি সীমান্তে এখনও অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন লাখ লাখ কৃষক। পাঞ্জাব, হরিয়ানা এবং উত্তরপ্রদেশ সীমান্তে প্রায় দু’মাস ধরে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ চালিয়ে যাচ্ছেন তারা। কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে এখন পর্যন্ত মোট ১০ দফা বৈঠক করলেও কোনও সমাধান হয়নি।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি