1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ১০:৫০ অপরাহ্ন

কোটালীপাড়ার চন্দ্রিমা পার্কের অশ্লীল নৃত্য বন্ধ করলো প্রশাসন

রিপোর্টার
  • আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৪ জুলাই, ২০২৪
  • ৬০ বার দেখা হয়েছে

কোটালীপাড়া (গোপালগঞ্জ) প্রতিনিধিঃ এইচএসসি পরীক্ষার সময়ে কোটালীপাড়ায় অনুমতি ছাড়াই বাউল গানের আসরের নামে অশ্লীল নৃত্যের আসরের আয়োজন করায় উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে অশ্লীল নৃত্যের আসরটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১ টার দিকে কোটালীপাড়া উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) প্রতীক দত্তের নির্দেশে এই আসর বন্ধ করা হয়।

জানা যায়, সাবেক মন্ত্রী কাজী ফিরোজ রশিদের মালিকানাধীন কোটালীপাড়া উপজেলার কান্দি ইউনিয়নের মাচারতারা গ্রামে অবস্থিত চন্দ্রিমা শিশু পার্কে ২৭ জুন থেকে বাউল গানের আসর বসে। পার্কের প্রচার প্রচারণার জন্য এই আসর বসায় পার্ক কর্তৃপক্ষ। সন্ধ্যা থেকে শুরু হয়ে গভীর রাত পর্যন্ত চলে এই গানের আসর। গত ১ জুলাই থেকে সন্ধ্যার পরপরই বাউল গান বাদ দিয়ে ডিজে গানের তালে তালে চলছিল অশ্লীল নৃত্য। বিষয়টি গতকাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ পেলে ভাইরাল হওয়ার পর ব্যাপক সমালোচনা ও নিন্দার ঝড় ওঠে। নেটিজেনদেন নানা মন্তব্যে দ্রæত ভাইরাল হয় অনুষ্ঠানটি।

গানের আসরটি সঞ্চালনার দায়িত্বে থাকা নাদিম মাহমুদ জানান, চন্দ্রিমা পার্ক কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে এই আসরের সামনের সারিতে বসা ব্যক্তিদের কাছ থেকে ২০০ টাকা ও পিছনের সারিতে বসা ব্যক্তিদের কাছ থেকে ১০০ টাকা টিকেট মূল্য হিসেবে রাখা হয়। সন্ধ্যা থেকে রাত ৩ টা পর্যন্ত চলে এই আসর। গতকাল মঙ্গবার রাত সাড়ে ১১ কোটালীপাড়া সহকারী কমিশনার ভূমি প্রতীক দত্ত ঘটনাস্থলে এসে এই আসর বন্ধ করে দেন।

পার্কটির মালিক সাবেক মন্ত্রী ও জাতীয় পার্টির একাংশের নির্বাহী চেয়ারম্যান কাজী ফিরোজ রশিদ বলেন, সন্ধ্যাকালীন সময়ে কিছু সময়ের জন্য পার্কের দর্শনার্থীদের বিনোদনের জন্য বাউল সঙ্গীতের আয়োজন করা হয়। তবে গভীর রাত পর্যন্ত বাউল গানের আড়ালে অশ্লীল নৃত্য পরিবেশনার খবর আমার জানা ছিল ন। গতকাল রাতে বিষয়টি আমি জানতে পেয়ে দ্রæত এই অনুষ্ঠান বন্ধের নির্দেশ দেই।
কোটালীপাড়া সহকারি কমিশনার ভূমি প্রতীক দত্ত বলে, গতকাল রাতে অভিযোগ পাই চন্দ্রিমা পার্কে বাউল গানের আসরের নামে অশ্লীল নৃত্য পরিবেশনা হচ্ছে। তাৎক্ষনিক সেখানে গিয়ে আসরটি বন্ধ করে দেওয়া দেই।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি