1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৬:৪৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
উন্নত বাংলাদেশ গড়তে উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি অপরিহার্য : রাষ্ট্রপতি একদিনে করোনায় আরও ৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৪৮০ ‘বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীকে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে’ বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে নতুন আইজিপির শ্রদ্ধা এক দিনে রেকর্ড ৬৩৫ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি দুর্গোৎসব অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি : ডেপুটি স্পিকার ৪ বছরেও সড়ক আইন বাস্তবায়নে বিধিমালা হয়নি : ইলিয়াস কাঞ্চন তোয়াব খান ছিলেন বাংলাদেশের সাংবাদিকতা জগতের পথিকৃৎ : রাষ্ট্রপতি ইরানে পুলিশ স্টেশনে হামলায় বিপ্লবী গার্ডসের কর্নেলসহ নিহত ১৯ এ বছর এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়নি : শিক্ষামন্ত্রী

চকরিয়ায় ২০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও ২০ একর বনভূমি উদ্ধার

রিপোর্টার
  • আপডেট : বুধবার, ২ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৪১৭ বার দেখা হয়েছে

কক্সবাজার প্রতিনিধি : কক্সবাজারের চকরিয়ায় অভিযান চালিয়ে প্রায় ২০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ সময় অন্তত ২০ একর বনভূমিও উদ্ধার করা হয়। কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের ফুলছড়ী রেঞ্জ আওতাধীন জুমনগর ও মেদাকচ্ছপিয়া এলাকায়। মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) বিকেল চারটা পর্যন্ত এ অভিযান চালানো হয়। বন বিভাগের সহায়তায় চকরিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. তানভীর হোসাইন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন।
অভিযানে ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জ ও ফুলছড়ী রেঞ্জের ভারপ্রাপ্ত রেঞ্জ কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম, ফুলছড়ী বিট কর্মকর্তা আকরাম হোসেন, ডুলাহাজারা বিট কর্মকর্তা ইলিয়াস হোসাইনসহ উভয় রেঞ্জের সকল বিট কর্মকর্তা, ভিলেজার ও চকরিয়া থানার একদল পুলিশ উপস্থিত ছিলেন।
ফুলছড়ি ভারপ্রাপ্ত রেঞ্জ কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলাম বলেন, ‘মেদাকচ্ছপিয়া জাতীয় উদ্যান ও ফুলছড়ী বিটের জুমনগর এলাকায় বনভূমি দখল করে অবৈধ স্থাপনা নির্মাণ করছিল ভূমিদস্যুরা। এ খবর পেয়ে চকরিয়া উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় মোবাইলকোর্ট অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় ১৫-২০টি অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করে প্রায় ২০ একর বনভূমি উদ্ধার করা হয়েছে।’
চকরিয়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. তানভীর হোসাইন বলেন, ‘ফুলছড়ী রেঞ্জের জুমনগর ও মেদাকচ্ছপিয়া এলাকায় প্রায় ২০ একর পাহাড়ী বনভূমির গাছপালা এবং পাহাড় কেটে অবৈধভাবে ১৫-২০ টি স্থাপনা নির্মাণ করে ভূমিদস্যুরা৷ বনবিভাগের সহায়তায় মোবাইলকোর্ট অভিযানে এসব অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘সরকারি বনভূমি থেকে এ উচ্ছেদ অভিযান অব্যাহত থাকবে।’

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি