1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:৩৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আয়কর আদায় না করতে নির্দেশ দুর্গাপূজায় ৩ কোটি টাকা অনুদান দিলেন প্রধানমন্ত্রী ফের ভ্যাকসিন রপ্তানি শুরু করতে যাচ্ছে ভারত করোনায় আরও ২৬ মৃত্যু, শনাক্ত ১,৫৫৫ শেখ হানিসার নেতৃত্বে কর্মমুখী শিক্ষাব্যাবস্থা বিপ্লব সৃষ্টি হবে সাংবাদিক নেতাদের ব্যাংক হিসাব তলব অপ্রত্যাশিত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ডিএমপির সহকারী পুলিশ কমিশনার পদমর্যাদার ৩ জনকে বদলি বিদেশে বসে রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রের ফোনআলাপ ফাঁস, নেপথ্যর কারিগর কনক সারোয়ার বাংলাদেশে আরও বিনিয়োগে আগ্রহী সৌদি আরব নগদ থেকে ৩ কোটি ৩২ লাখ টাকা পেল ডাক বিভাগ ‘সরকারকে বহু আগেই ধন্যবাদ দেয়া প্রয়োজন ছিল বিএনপির’ বিএনপির আন্দোলনের বর্তমান প্রয়াসও নিষ্ফল হবে : কাদের এক মাসের মধ্যে ডেঙ্গুর প্রকোপ কমে আসবে : স্থানীয় সরকারমন্ত্রী ভারতে করোনায় মৃত্যু ও সংক্রমণ কমেছে রাজধানীতে মাদক বিক্রি ও সেবনের অভিযোগে গ্রেফতার ৫০

চাল-তেলের দাম বেড়েছে, স্বস্তি ফিরেছে মুরগিতে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট : শনিবার, ৫ জুন, ২০২১
  • ৬২ বার দেখা হয়েছে

মুরগি ও সবজির বাজারে স্বস্তি থাকলেও খানিকটা বিরতি দিয়ে ফের বাড়তে শুরু করেছে চাল ও তেলের দাম।

মাসখানেক আগেও কোম্পানিভেদে বোতলজাত সয়াবিন তেল এক লিটার ১৩৫-১৩৯ টাকা ও পাঁচ লিটার ৬৫০-৬৬০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছিল। সে তেল এখন খুচরা বাজারে বিক্রি হচ্ছে এক লিটার ১৫০ টাকায়, দুই লিটার ২৮৫ টাকায় ও পাঁচ লিটার ৭৫০ টাকায়। এদিকে সপ্তাহের ব্যবধানে চাল, ডিম, পেঁয়াজের দামও বৃদ্ধি পেয়েছে।

শনিবার (৫ জুন) সরেজমিনে রংপুর মহানগরীর বিভিন্ন বাজারে ঘুরে দেখা যায়, মিনিকেট, নাজিরশাইল, বিআর-২৮ ও ২৯ চালের দাম গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিপ্রতি বেড়েছে ২-৪ টাকা। মিনিকেট বিক্রি করা হচ্ছে ৬২-৬৪ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ৫৯-৬০ টাকা। নাজিরশাইল ৬০-৬২ টাকায় , যা গত সপ্তাহে ছিল ৫৭-৫৮ টাকা। বি-আর ২৮ ৪৮-৫০ টাকইয়্য, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪৫-৪৭ টাকা। বি-আর ২৯ ৪৫-৪৬ টাকা্য, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪৩-৪৪ টাকা। আর কাটারিভোগ বিক্রি হচ্ছে ৬০-৬৫ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ৫৬-৫৮।

সিটি বাজারের চাল ব্যবসায়ী মিজু মিয়া বলেন, ‘চালের দাম বেশ কয়েকমাস থেকেই ওঠানামা করছে। এভাবে চলতে থাকলে ক্রেতা ও ভোক্তা উভয়কে হয়রানির শিকার হতে হয়। অস্বস্তিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয় বাজারে’।

সিটি বাজারে চাল কিনতে আসা আয়শা খানম বলেন, ‘কয়েকদিন আগে চালের দাম কিছুটা কমেলেও আবার দাম বেড়েছে। আমরা নিম্ন-মধ্যবিত্ত মানুষ। তিনবেলা ভাত ছাড়া চলে না। কিন্তু চালের দাম যেভাবে বেড়ে যাচ্ছে তাতে চাল কিনতেই টাকা শেষ। অন্য খরচ হয় না’।

এদিকে সপ্তাহের ব্যবধানে কিছুটা কমেছে মুরগির দাম। খুচরা বাজারে ব্রয়লার মুরগির কেজি ১৩০-১৩৫ টাকায়। আর পাকিস্তানি মুরগি ১৯০-২০০ টাকায়, যা গত সপ্তাহে ছিল ২১০ টাকা। দেশি মুরগি ৪০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে, যা গত সপ্তাহে ছিল ৪২০ টাকা। এছাড়া গত সপ্তাহের দর ২২০ টাকায় রয়েছে লেয়ার মুরগি।

মুলাটোল আমতলা বাজারের মুরগি ব্যবসায়ী আল-আমিন বলেন, ‘ব্রয়লার ও পাকিস্তানি মুরগির আমদানি কিছুটা বেড়েছে বলেই দাম কমেছে। দাম কমলেই বাজারে ক্রেতার সমাগম বেড়ে যায় ও আমাদের বেচাকেনা ভালো হয়’।

তবে বেড়ে গেছে ফার্মের মুরগির ডিমের দাম। প্রতিহালি ফার্মের মুরগির ডিমের দাম ৩২-৩৪ টাকা। দেশি মুরগির ডিম ৭০ টাকা, হাঁসের ডিম ৪০-৪৫ টাকা ও পাকিস্তানি মুরগির ডিম ৪৫ টাকা হালি দরে বিক্রি হচ্ছে।

সিটি বাজারের ডিম ব্যবসায়ী শামছুল হক বলেন, ‘দাম বাড়লেও ডিমের চাহিদা কমেনি। প্রোটিনের চাহিদা পূরণে ডিম অত্যাবশ্যক। সকল শ্রেণি-পেশার মানুষের কাছেই ডিমের চাহিদা রয়েছে’।

এদিকে সবজির বাজারে বিরাজ করছে স্বস্তি। বাজার ঘুরে দেখা যায়, বরবটি ৪০ টাকা, ঢ়েঁড়স ২০-২৫ টাকা, বেগুন ৩০-৩৫ টাকা, পেঁপে ৪০-৪৫ টাকা, পটল ২৫-৩০ টাকা, কাঁচাকলা প্রতি হালি ৩০ টাকা, লাউ প্রতি পিস ২০-২৫ টাকা, করলা ৪০-৪৫ টাকায় বিক্রি করা হচ্ছে। আর টমেটো ৪৫-৫০ টাকা, গাজর ১২০-১৫০ টাকা, শসা ৩০ টাকা, পানি কুমড়া ২৫-৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া পেঁয়াজ কেজিপ্রতি ৫৫-৬০ টাকা, কার্টিনাল আলু ১৫-১৬ টাকা, শিলআলু ২৫ টাকা, সাদা আলু ২৪ টাকা, আদা ৬০-৮০ টাকা, রসুন ৬০-৭০ টাকা, কাঁচা মরিচ ১০-২০ টাকা, শুকনা মরিচ ২৩০-২৫০ টাকা ও বিভিন্ন ধরনের শাক প্রতি আঁটি ১০-১৫ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

 

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি