1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
  3. [email protected] : lalashimul :
সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ০৬:১৫ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
রায়পুর পৌরসভা নির্বাচনে গিয়াস উদ্দিন রুবেল ভাট মেয়র নির্বাচিত হয়েছে হবিগঞ্জে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আতাউর রহমান সেলিম মেয়র নির্বাচিত জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড . হারুনের দুই মেয়াদ পূর্তিতে সংবাদ সম্মেলন মাদারীপুরে আগুনে পুড়ে শিশুর মৃত্যু লক্ষ্মীপুরে বীমা দিবস উপলক্ষে মানববন্ধন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখার আহ্বান ভিসি হারুনের সোনাইমুড়ীর জাহানারা হাসপাতালের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ করোনার টিকা নিলেন নরেন্দ্র মোদী করোনাভাইরাসে ২৪ ঘণ্টায় আরও ৮ জনের মৃত্যু, নতুন ৫৮৫ রোগী শনাক্ত ‘ভারতও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুর্বণজয়ন্তী উদযাপন করবে’

‘ডট বাংলা’ ডোমেইনে আগ্রহে ভাটা

রিপোর্টার
  • আপডেট : শনিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৯ বার দেখা হয়েছে

অনেক আগ্রহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ২০১৬ সালের শেষ দিনে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হয় ডট বাংলা আইডিএনের।
বিশ্বব্যাপী কাজ হয় ইংরেজি ভাষায়, সে কারণে বাংলা ডোমেইনে আগ্রহ কম বলে মনে করছেন একজন তথ্য-প্রযুক্তিবিদ। বিশ্বব্যাপী কাজ হয় ইংরেজি ভাষায়, সে কারণে বাংলা ডোমেইনে আগ্রহ কম বলে মনে করছেন একজন তথ্য-প্রযুক্তিবিদ।বাংলা ভাষায় স্বীকৃত বাংলাদেশের জাতীয় ডোমেইন ‘ডট বাংলা’ (.বাংলা) নিবন্ধন শুরুর চার বছর পেরিয়ে গেলেও গ্রাহকের কাছ থেকে তেমন সাড়া পায়নি রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিযোগাযোগ কোম্পানি বিটিসিএল।
এখন পর্যন্ত ডট বাংলা ডোমেইন নিবন্ধন হয়েছে ৯০৫টি। তার মধ্যে সচল আছে মাত্র ৬২৩টি।বিটিসিএলের তথ্য পর্যালোচনা করে দেখা যায়, নিবন্ধন শুরুর বছরে এ ডোমেইন যে সংখ্যায় নিবন্ধিত হয়েছিল, চার বছরের মাথায় তা এক তৃতীয়াংশে নেমেছে।একই সময়ে গত চার বছরে ডট বিডি (.bd) ডোমেইন নিবন্ধন বাড়ছে। গত চার বছরে এ ডোমেইন নিবন্ধন হয়েছে ৩০ হাজার ৩৮০টি।
২০১৬ সালের ৫ অক্টোবর ডট বাংলা (.বাংলা) ডোমেইন চূড়ান্ত বরাদ্দ পায় বাংলাদেশ; এর মাধ্যমে দীর্ঘ প্রতীক্ষিত ডট বাংলা আইডিএনের যাত্রা শুরু হয়। ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারি থেকে এ ডোমেইন নিবন্ধন শুরু করে বিটিসিএল। ইন্টারন্যাশনালাইজড ডোমেইন নেইম (আইডিএন) একটি ইন্টারনেট ডোমেইন নেইম সিস্টেম, যা ওয়েব ঠিকানা লিখতে প্রচলিত ইংরেজি ভাষা ছাড়া অন্যান্য ভাষা সমর্থন করে।বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারত সরকারের মাধ্যমে পশ্চিমবঙ্গ ও সিয়েরা লিওনও ‘.বাংলা’র জন্য আবেদন করেছিল।
ডট বাংলা ডোমেইন চালুর ফলে বাংলা ভাষাভাষী মানুষ মাতৃভাষায় ইন্টারনেটে প্রবেশ ও ব্যবহার করতে পারছে।বাংলাদেশের জন্য আইসিএএনএনের স্বীকৃত দুটি ডোমেইনের একটি হলো ডট বাংলা এবং আরেকটি হল ডট বিডি (.bd)।
কোনো একটি রাষ্ট্রের জাতীয় পরিচয়ের স্বীকৃতি হিসেবে কাজ করে এই ডোমেইন। যেমন ডট ইউকে যুক্ত নামের কোনো ওয়েবসাইটে প্রবেশ করলেই বোঝা যাবে সেটি যুক্তরাজ্যের ওয়েবসাইট। তেমনি ইউনিকোড দিয়ে স্বীকৃত বাংলাদেশি ডোমেইন হল ডট বাংলা।
ডট বাংলা হচ্ছে বাংলাদেশের জন্য একটি দ্বিতীয় ইন্টারনেট কান্ট্রি কোড টপ-লেভেল ডোমেইন (সিসিটিএলডি)। এই ডোমেইন বাংলা ভাষায় ওয়েব ঠিকানার জন্য বোঝানো হয়।
বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন্স কোম্পানি লিমিটেড (বিটিসিএল) ডট বাংলা ডোমেইনের টেকনিক্যাল কনটাক্ট হিসাবে দায়িত্ব পালন করছে।
বিশ্বব্যাপী কাজ হয় ইংরেজি ভাষায়, সে কারণে বাংলা ডোমেইনে আগ্রহ কম বলে মনে করছেন একজন তথ্য-প্রযুক্তিবিদ।বিশ্বব্যাপী কাজ হয় ইংরেজি ভাষায়, সে কারণে বাংলা ডোমেইনে আগ্রহ কম বলে মনে করছেন একজন তথ্য-প্রযুক্তিবিদ।কোম্পানির পরিচালক (জনসংযোগ ও প্রকাশনা) মীর মোহাম্মদ মোরশেদ বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, নিবন্ধন শুরু হওয়ার পর শুরুতে ডট বাংলা নিবন্ধনে খুব ভালো আগ্রহ ছিল। ২০১৭ সালে ৩৮৬টি, ২০১৮ সালে ১৭৪টি, ২০১৯ সালে ২৩৬টি, ২০২০ সালে ১০৪টি এবং ২০২১ সালে মাত্র ৫টি ডোমেইন নিবন্ধিত হয়েছে।
অপরদিকে ডট বিডি (.বিডি) ডোমেইন ২০১৭ সালে ৫ হাজার ১৭৭টি, ২০১৮ সালে ৪ হাজার ৮৮৯টি, ২০১৯ সালে ৬ হাজার ৫০৪টি, ২০২০ সালে ১৩ হাজার ৪২টি এবং ২০২১ সালে ৭৬৮টি নিবন্ধিত হয়েছে।
মীর মোহাম্মদ মোরশেদ জানান, সব মিলিয়ে ডট বাংলা ও ডট বিডি ডোমেইনে নিবন্ধিত হয়েছে ৩৩ হাজার ৫০৮টি নাম। তবে এর মধ্যে ৬২৩টি ডট বাংলা ডোমেইন এবং ৩১ হাজার ৫১১টি ডট বিডি ডোমেইন সচল রয়েছে।সাময়িক বিচ্ছিন্ন রয়েছে এক হাজার ৩৭৪টি, এর মধ্যে ডট বাংলা ডোমেইন ১৭টি এবং ডট বিডি ডোমেইন এক হাজার ৩৫৭টি।
ডট বাংলা ডোমেইনের জনপ্রিয়তা বাড়াতে কোনো উদ্যেগ আছে কি না জানতে চাইলে বিটিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রফিকুল মতিন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে এর প্রচারণা চালানো হচ্ছে।
“ডট বাংলা ডোমেইন সেবা অনলাইনভিত্তিক নিরাপদ অটোমেশন সিস্টেম ব্যবহার করে করা হচ্ছে। এছাড়া বিশ্বের অন্যান্য ডোমেইন প্রোভাইডারদের সাথে সামঞ্জস্য রেখে ডট বাংলা ডোমেইন সেবায় অটোমেশন সিস্টেম প্রতিনিয়ত হালনাগাদ করা হচ্ছে।”
এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে তথ্য প্রযুক্তিবিদ সুমন আহমেদ সাবির বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “আমরা মূলত ইংরেজিতে অভ্যস্ত হয়ে গেছি। শুরুতে আবেগে অনেকে এই ডোমেইন নিলেও পরে আর সেই আবেগ কাজ করেনি। খুব বেশি ডট বাংলা ডোমেইন নিবন্ধন হবে- এটা আশা করাও ঠিক না। কারণ যখন কেউ ডোমেইন নেয় ব্যবসা বা প্রচারের জন্য ব্যবহার করতে, সেটা ইংরেজিতে নেয়, যে ভাষায় পুরো বিশ্বে কাজ করে।”
ডাক ও টেলিযোগাযাগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “সার্বিকভাবে আমার পর্যবেক্ষণে বাংলাকে আমরা প্রাধান্য কম দিচ্ছি। বাংলা প্রবর্তনের ক্ষেত্রে উন্নাসিকতা এবং সমস্যা আমাদের মানসিকতায়। বাংলা প্রচলনের ক্ষেত্রে সমস্যাটা রয়েই গেছে। ডিভাইসগুলোতে বাংলা অক্ষর দিয়ে লিখতে না পারাও এর কারণ হতে পারে, অনেকেই আমরা ডিজিটাল ডিভাইসে বাংলা লিখতে অভ্যস্ত না।”
ডট বাংলা নিবন্ধনে দাম কমানো হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, শুরুতে এই ডোমেইন নিবন্ধনে দুই বছরের জন্য এক হাজার টাকা দিতে হত, এখন মাত্র ৪০০ টাকা করা হয়েছে। এছাড়া এ ডোমেইনের ক্ষেত্রে ইউনিকোড ব্যবহারে যে সমস্যাগুলো ছিল, তা অনেকাংশেই সমাধান করা হয়েছে।”

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি