1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৫৪ সালাহর জোড়া গোলে লিভারপুলের হ্যাটট্রিক ‘হালি’ এবার ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নারী আহত, চালক আটক সংসার ভাঙছে তথাগত-দেবলীনার! আমিরাতের টি২০ লিগে দল কিনলেন রোনালদোদের মালিক বিশ্বে করোনায় মৃত্যু-শনাক্ত আরও বাড়লো করোনা বাড়লে আবারও বন্ধ হয়ে যাবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান: প্রধানমন্ত্রী যেসব খাতে ভারত-পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ জাতির আস্থার প্রতীকে পরিণত হয়েছে সেনাবাহিনী: স্পিকার রিটার্ন জমা বেড়েছে, করদাতা ছাড়াতে পারে ২৫ লাখ এক সেঞ্চুরি আর আরেক হাফ সেঞ্চুরিতে ২৪ ধাপ এগোলেন লিটন আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমলে ব্যবস্থা নেবো: অর্থমন্ত্রী ময়লাবাহী গাড়িচালক নিয়োগে উদ্যোগ নিয়েছি: তাপস নারী জাগরণে কাজ করেছে ঢাবি: আইনমন্ত্রী বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদন, নতুন অধ্যায়ে দেশ

পিপিই পরে নারীর অভিনব ভিক্ষা !

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট : সোমবার, ১৫ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৩১ বার দেখা হয়েছে

প্রথম দেখাতে মনে হতে পারে করোনাকে প্রতিহত করার জন্য পিপিই পরে আছেন এই মহিলা। কিন্তু না, তিনি মূলত পিপিই পরে রাস্তায় ভিক্ষা করছেন। আর এই কান্ড দেখে রীতিমতো থমকে যাচ্ছিলেন অনেকেই। এ ঘটনা ভারতের ওড়িষ্যাতে। রবিবার (১৪ ফেব্রুয়ারি) ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম সংবাদ প্রতিদিনের একটি প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

চোখের সামনে এই দৃশ্য দেখে অনেকেই বিশ্বাস করতে পারছিলেন না। ভারত কেন, তৃতীয় বিশ্বের যে কোনো দেশেই ভিক্ষুকদের দেখা পাওয়াটা একটা সাধারণ ঘটনা। কিন্তু পিপিই পরে ভিক্ষা নিঃসন্দেহে অভাবনীয়। আর এভাবেই ওড়িষ্যার এক স্বাস্থ্যকর্মীকে দেখা গেল ভিক্ষা করতে।

জানা গেছে, এটা আসলে এক ধরনের ‘অভিনব’ প্রতিবাদ। ওই মহিলার নাম অশ্বিনী পাড়ি। ওড়িষ্যার ভদ্রক জেলার চরম্পা গ্রামের বাসিন্দা তিনি। অশ্বিনী কাঠগড়ায় তুলেছেন ওড়িষ্যার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েকের সরকারকে।
তার অভিযোগ, রাজ্যে করোনা মহামারি প্রকোপের সময় তার মতো বহু স্বাস্থ্যকর্মীকে কাজে নিয়োগ করা হয়েছিল। কিন্তু এখন পরিস্থিতি ঠিক হওয়ার পর হঠাৎই কাজ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে তাদের। এরপরই এই প্রতিবাদের পথ বেছে নিয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘করোনা ছড়িয়ে পড়ার পরে যখন রাজ্যের অবস্থা বেশ খারাপ ছিল, সে সময় রাজ্য সরকার আমাদের ‘কোভিড যোদ্ধা’ হিসেবে নিয়োগ করেছিল। আমরা আমাদের পরিবার ও নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে করোনা রোগীদের সেবা করেছিলাম। নয়মাস পরে সরকার কোনো রকম বিকল্প কাজের সুযোগ না দিয়ে আমাদের বাদ দিয়ে দিয়েছে।’

ভারতীয় গণমাধ্যম থেকে জানা গেছে, করোনার প্রকোপ বাড়ার পরে এমন আট হাজার কর্মীকে নিয়োগ করেছিল ওড়িষ্যা সরকার। তাদের চুক্তিভিত্তিক ভাবেই নিয়োগ করা হয়েছিল। কিন্তু বছরের শেষে তাদের চুক্তি শেষ হওয়ার পরে আর তা পুনর্নবীকরণ করা হয়নি।

 

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি