1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ১০:৪৮ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
দুর্নীতি রোধে ডিসিদের সহযোগিতা চাইলো দুদক জুয়া আইনে শাস্তি বাড়ানোর প্রস্তাব ডিসিদের ধানুশের বাবা বললেন, ‘বিবাহবিচ্ছেদ নয়, ঝগড়া হয়েছে’ ‘ব্ল্যাক টাইগার’ ও ‘ভেতারান’ রিমেকে সালমান লক্ষ্য অর্জন ও অদক্ষতার অজুহাতে ব্যাংকারদের চাকরিচ্যুত করা যাবে না ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার পরপরই গ্রেপ্তার নয়: আইনমন্ত্রী প্রথমবারের মতো দেশে এলো এক ডোজের জনসন টিকা হাইকোর্টে তাহসানের আগাম জামিন এমন কোনো দেশ নেই এনকাউন্টার ঘটে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী স্বাস্থ্যবিধি অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ শান্তিরক্ষা মিশন থেকে র‌্যাবকে বাদ দিতে জাতিসংঘে চিঠি করোনায় ৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১০৮৮৮ খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র করোনায় আক্রান্ত টাইগার যুবাদের সামনে জয়ে ফেরার সুযোগ আইসিসির বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে ৩ বাংলাদেশি

প্রতারণা করে ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে ৫০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছিলেন তিনি

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট : বুধবার, ২ জুন, ২০২১
  • ৮৪ বার দেখা হয়েছে

প্রতারণার ফাঁদে ফেলে ব্যবসায়ীদের ৫০ কোটি টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে মশিউর রহমান খান ওরফে বাবু নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। তাঁর বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত ৯২টি মামলা থাকার তথ্য পেয়েছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর মহাখালী এলাকা থেকে ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আজ বুধবার সংবাদ সম্মেলন করে সিআইডির পক্ষ থেকে বলা হয়, মশিউর রহমান সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্রের অন্যতম হোতা। দীর্ঘদিন ধরে প্রতারণার মাধ্যমে ৫০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন আসামি মশিউর রহমান।

প্রতারণার মাধ্যমে কীভাবে ব্যবসায়ীদের টাকা আত্মসাৎ করেছেন, সে ব্যাপারে সিআইডির উপমহাপরিদর্শক (ডিআইজি) শেখ ওমর ফারুক সাংবাদিকদের বলেন, আসামি মশিউর রহমানের বাড়ি গোপালগঞ্জ। গুগলসহ অনলাইনে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করে মশিউর রহমানের সহযোগীরা।

পরে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য চাল, ডাল, তেল, লবণসহ বিবিধ পণ্য সরবরাহকারীদের সঙ্গে তাঁর সহযোগীরা যোগাযোগ করেন। সংঘবদ্ধ অপরাধী চক্রের সদস্যদের পেশাদারি আচরণে তাঁদের অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড ধরতে পারেন না ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীরা। যেকোনো পণ্য কেনার পর তার ১০ থেকে ৩০ শতাংশ মূল্য পরিশোধ করতেন মশিউর রহমান। বাকি ৭০ শতাংশ মূল্য চেকের মাধ্যমে পরিশোধ করতেন।

পরে ব্যবসায়ীরা ব্যাংকে গিয়ে জানতে পারেন, মশিউর রহমান রহমান যে চেক দিয়েছেন, সেই হিসাবে পর্যাপ্ত অর্থ থাকে না। এরপর দিনের পর দিন টাকা না দিয়ে নানাভাবে প্রতারিত করেন মশিউর রহমান।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সিআইডি কর্মকর্তা শেখ ওমর ফারুক বলেন, মশিউর রহমানের বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত তাঁদের কাছে ১০০ জনের মতো ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী অভিযোগ করেছেন। দিন দিন এই অভিযোগকারীর সংখ্যা বাড়ছে। সিআইডি কার্যালয়ে প্রতারিত শতাধিক ব্যবসায়ী আজ হাজির ছিলেন। মশিউর রহমানের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীরা।

গাজীপুরের আতিকুর রহমান নামের এক ব্যবসায়ী  বলেন, মশিউর রহমানের কোম্পানি তাঁর কাছ থেকে গার্মেন্টসসামগ্রী কেনে। মাল বুঝে নিলেও আর কোনো টাকা দিচ্ছেন না। চেক দিয়েছেন কিন্তু সেই চেকে টাকা নেই। কয়েক বছর ধরে তিনি ঘুরছেন।

সিআইডি কর্মকর্তা শেখ ওমর ফারুক জানান, প্রতারণার মাধ্যমে ৫০ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মশিউর রহমানসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে কাফরুল থানায় মামলা হয়েছে। আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে আরও অনেক তথ্য বেরিয়ে আসবে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন সিআইডি বিশেষ পুলিশ সুপার মো. খালিদুল হক হাওলাদার, মোহাম্মদ সাইদুর রহমান খান, সিআইডির মিডিয়া উইংয়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. আজাদ রহমান।

 

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি