1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২২, ১২:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
অশ্লীলতার মামলায় খালাস পেলেন শিল্পা শেঠি নির্বাচন নিয়ে বিএনপির সুনির্দিষ্ট কোনো রূপরেখা নেই: কাদের প্রকাশ্যে এসে কাঁদতে কাঁদতে অনেক কথা বললেন পপি করোনায় আরও ১৭ মৃত্যু, শনাক্ত ১৫,৫২৭ নন-ক্লোজার এগ্রিমেন্টে ভ্যাকসিন কেনা হয়েছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওমিক্রনের ঝুঁকি এখনো অনেক বেশি : ডব্লিওএইচও সমন্বিত ৫ ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত বিনামূল্যে টিকা দেওয়ার বিষয়টি অগ্রাধিকার দিয়েছি : প্রধানমন্ত্রী রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৬৬ নির্বাচন কমিশন গঠন বিলের রিপোর্ট সংসদে উত্থাপন প্রিয়াংকা মা হওয়ায় দুশ্চিন্তায় প্রযোজকরা নেদারল্যান্ডসকে হোয়াইটওয়াশ করল আফগানিস্তান ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস আজ অবশেষে অনশন ভাঙলেন শাবি শিক্ষার্থীরা ওমিক্রন প্রতিরোধী ফাইজারের নতুন টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু

প্রতিদিন ৬০ জন দুস্থকে ইফতার খাওয়াচ্ছে ভিবিডি

আরএম সেলিম শাহী
  • আপডেট : শনিবার, ১ মে, ২০২১
  • ১৯৪ বার দেখা হয়েছে
শেরপুরঃ জাগো ফাউন্ডেশনের সহযোগী সংগঠন ভলেন্টিয়ার ফর বাংলাদেশ (ভিবিডি) এর আয়োজনে ‘ইফতারে খুশি’ প্রকল্পে জেলার শ্রীবরদী উপজেলার প্রত্যন্ত গ্রামের অসহায় ও দুস্থ বিধবা ৬০ জন নারীকে ইফতার করানো হচ্ছে। এসব ইফতার প্রতিদিন রান্না করে ওইসব দুস্থদের বাড়ি বাড়ি পৌছে দেয়া হচ্ছে। এসব ইফতারের মধ্যে থাকছে প্রতিদিন বুট-মুুড়ির-খেজুরের সাথে কোন কোন দিন পায়েশ, বিরিয়ানি, সবজি খিচুরিসহ নানা ফল। ইফতারের খরচ জোগার করতে ভিবিডি’র নিজস্ব ফেইসবুক পেইজে সাহায্যের জন্য পোষ্ট দেয়া হয়েছে। এছাড়া অনেক হৃদয়বান ও অর্থশালী ব্যক্তি সরাসরি তাদের এ ইফতারের খরচ দিয়ে যাচ্ছে
জানাগেছে, ভিবিডি শেরপুর জেলা শাখার আয়োজনে গোসাইপুর ইউনিয়নের গিলাগাছা, গড়গড়িয়া ও পূর্ব বাদে ঘুনা পাড়া গ্রামের অসহায়, দুস্থ বিধবা নারীকে প্রতিদিন বাড়ি বাড়ি গিয়ে এসব ইফতারী পৌছে দেয়া হয়। ভিবিডি’র সভাপতি মো. নাইমুর রহমান তালুকদার জানায়, শহরের দুস্থ মানুষ বিভিন্ন ভাবে তারা ইফতার পেয়ে থেকেন। কিন্তু গ্রামের অসহায় কর্মক্ষম মানুষ বিশেষ করে বিধবা-বৃদ্ধরা ভালো কিছু ইফতার করার সামথ্য নেই। এছাড়া গ্রামে ভালো ইফতার খাওয়ার সুযোগ নেই। তাই তারা তাদের সংগঠনের উদ্যোগে ‘ইফতারে খুশি’ শিরোনামে ফেসইবুক পেইজে পোষ্ট দেয়া হয়। এরপর থেকেই দেশের বিভিন্ন জনের মাধ্যমে টাকা আসতে থাকে। প্রতিদিন তাদের ইফতারের খরচ হচ্ছে প্রায় ২ হাজার থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকা। আমরা নিজেরাই বাজার করে নিজেদের বাড়িতে রান্না করে তারপর প্যাকেট করে ইফতারের আগেই বাড়ি বাড়ি সেসব ইফতার পৌছে দেই। আমার সাথে সহযোগীতায় রয়েছে সংগঠনের সহ সভাপতি আজমল হোসেন, কো-লিডার টুটুল ও রাজু। আমরা আশা করছি ৬ রোজা থেকে আমাদের এ কার্যক্রশ শুরু করলেও শেষ রোজার দিন পর্যন্ত ইফতার করাতে পারবো ইনশাআল্লাহ। ইফতার সহয়তা পাপ্তি গোসাইপুর গ্রামের হতদরিদ্র বিধবা বৃদ্ধা আফরোজা এবং পাশের গ্রাম গিলাগাছা গ্রামের বুড়ির মা জানায়, অনেক দিন হয় ভালো ইফতার করবার পাইনা। পোলারা আইয়া আমাগো দামি দামি ইফতার করাইতাছে। আল্লার কাছে দোয়া করি পোলারা অনেক বড় হোক।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি