1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
শনিবার, ০১ অক্টোবর ২০২২, ১১:৪১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
উন্নত বাংলাদেশ গড়তে উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি অপরিহার্য : রাষ্ট্রপতি একদিনে করোনায় আরও ৫ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৪৮০ ‘বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীকে দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা চলছে’ বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে নতুন আইজিপির শ্রদ্ধা এক দিনে রেকর্ড ৬৩৫ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি দুর্গোৎসব অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের প্রতিচ্ছবি : ডেপুটি স্পিকার ৪ বছরেও সড়ক আইন বাস্তবায়নে বিধিমালা হয়নি : ইলিয়াস কাঞ্চন তোয়াব খান ছিলেন বাংলাদেশের সাংবাদিকতা জগতের পথিকৃৎ : রাষ্ট্রপতি ইরানে পুলিশ স্টেশনে হামলায় বিপ্লবী গার্ডসের কর্নেলসহ নিহত ১৯ এ বছর এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়নি : শিক্ষামন্ত্রী

ফেনীর মুহুরী ও কহুয়া নদীর বাঁধ ভেঙে নয় গ্রাম প্লাবিত

সৈয়দ মনির আহমদ
  • আপডেট : শুক্রবার, ২ জুলাই, ২০২১
  • ২৩৪ বার দেখা হয়েছে

ফেনী :

ফেনীর ফুলগাজী ও পরশুরাম উপজেলায় টানা বর্ষণ এবং পাহাড়ি ঢলে মুহুরী ও কহুয়া নদীর তিনটি স্থানে বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ ভেঙে গেছে। এতে উজানের পানি উপচে দুই উপজেলার নয়টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। পাহাড়ি ঢলের পানিতে দুটি উপজেলায় প্রায় সাতশ পরিবার পানিবন্দী হয়ে পড়েছে।

উপজেলা প্রশাসন, পানি উন্নয়ন বোর্ড ও স্থানীয় লোকজন জানান, বৃহস্পতিবার দুপুরে পাহাড়ি ঢল ও উজানের পানির চাপে ফুলগাজী সদর ইউনিয়নের উত্তর দৌলতপুর অংশে একটি ও জয়পুর অংশে একটি স্থানে মুহুরী নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে যায়। অন্যদিকে পরশুরাম উপজেলার কহুয়া নদীর সাতকুচিয়া অংশে একটি স্থানে বেড়িবাঁধ ভেঙে গেছে। এতে ফেনী-পরশুরাম আঞ্চলিক সড়কের এক অংশ পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় পরশুরাম উপজেলার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।

প্লাবিত গ্রামগুলো হচ্ছে ফুলগাজী সদর ইউনিয়নের জয়পুর, ঘনিয়া মোড়া, পূর্ব ঘনিয়া মোড়া, কিসমত ঘনিয়া মোড়া, উত্তর দৌলতপুর, বৈরাগ পুর ও জগৎপুর এবং পরশুরাম উপজেলার সাতকুচিয়া ও চিথলিয়া।

খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক আবু সেলিম মাহমুদ উল হাসান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জহির উদ্দিন, ফুলগাজী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল আলিম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফেরদৌসী বেগম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুলতানা নাসরিন, ফুলগাজী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এএনএম নুরুজ্জামান ও সদর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম ভাঙন স্থান পরিদর্শন করেন।

বেড়িবাঁধ ভাঙন ও বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে জানতে চাইলে ফুলগাজী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর ইউনিয়নের উত্তর দৌলতপুর ও জয়পুর অংশে মুহুরী নদীর বেড়িবাঁধ ভেঙে জয়পুর, ঘনিয়া মোড়া, পূর্ব ঘনিয়া মোড়া, কিসমত ঘনিয়া মোড়া, উত্তর দৌলতপুর, বৈরাগ পুর ও জগৎপুর গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এ ছাড়া পরশুরাম উপজেলার কহুয়া নদীর সাতকুচিয়া অংশ বেড়িবাঁধ ভেঙে সাতকুচিয়া, চিথলিয়াসহ দুটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।

ফুলগাজী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ফেরদৌসী বেগম বলেন, মুহুরী নদীর দুটি স্থানে ভাঙনের ফলে সদর ইউনিয়নের সাতটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। বন্যাকবলিত এলাকায় শুকনো খাবার বিতরণ করা হয়েছে। পানিবন্দী মানুষের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ফেনীর পাউবো নির্বাহী প্রকৌশলী জহির উদ্দিন বলেন, সকালে পানির প্রবাহ বেশি ছিল। দুপুরে মহুরী নদীর পানি বিপৎসীমার ১৩ দশমিক ৭৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হয়। উজানে বৃষ্টি না হলে পানি দ্রুত নেমে যাবে।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি