1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০২:০৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
নারায়ণগঞ্জে ফের নৌকার মনোনয়ন পেলেন আইভী ডেল্টার অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে ওমিক্রন প্রতিরোধ করতে হবে: ডব্লিউএইচও ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের রক্তের সম্পর্ক : নৌপ্রতিমন্ত্রী অসীম ক্ষমতা শেখ হাসিনার নাই : পরিকল্পনামন্ত্রী শনিবার ঢাকায় বিশ্ব শান্তি সম্মেলন বস্ত্র খাত অর্থনীতি, সমাজ ও সংস্কৃতির অঙ্গ হিসেবে ভূমিকা রাখছে: প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চায় খালেদা হাসপাতালে থাকুক: তথ্যমন্ত্রী ৫ ডিসেম্বরের মধ্যে দিয়াবাড়ি-আগারগাঁও রুটের ট্রায়াল ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় ‘জাওয়াদ’: ২ নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত করোনায় ৩ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৪৩ আর সনদধারী বেকার তৈরি করতে চাই না : শিক্ষামন্ত্রী প্রতিবন্ধীরা সমাজের বোঝা নয়: সমাজকল্যাণমন্ত্রী পঞ্চগড়ে প্রথম স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা ওড়ে: মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রী বিশ্বমানের রেলওয়ে করার লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার: রেলমন্ত্রী বাংলাদেশ-পাকিস্তান টেস্ট ম্যাচ ৫০ টাকায়

শচিনের নাম ভাঙিয়ে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ

রিপোর্টার
  • আপডেট : শনিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩৬২ বার দেখা হয়েছে

স্পোর্টস ডেস্ক : কোনো সন্দেহ ছাড়াই ভারতের ক্রিকেটে সবচেয়ে বড় নাম শচিন টেন্ডুলকার। দেশটিতে তার প্রভাব এতোটাই বেশি যে, সবাই তাকে একবাক্যে ক্রিকেট ঈশ্বর হিসেবেই মেনে থাকেন। কিন্তু এরই মাঝে আবার রয়েছে অসাধু ব্যক্তিবর্গ। যারা কি না নিজেদের উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য অপব্যবহার করছেন শচিনের নাম।
ভারতের ক্রিকেট ইম্প্রুভমেন্ট কমিটি (সিআইসি) চেয়ারম্যান লালচাঁদ রাজপুত এনেছেন এমন অভিযোগ। শুক্রবার মুম্বাই ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের (এমসিএ) প্রধান বিজয় পাতিলকে তিনি জানিয়েছেন যে, কিছু মানুষ নিজেদের পছন্দের ব্যক্তিদেরকে দায়িত্বে বসানোর জন্য শচিনের নাম ব্যবহার করছে।
গত বুধ ও বৃহস্পতিবার মুম্বাই ক্রিকেটের কোচের পদের জন্য ২৪ জন প্রার্থীর সাক্ষাৎকার নিয়েছেন সিআইসির তিন সদস্য লালচাঁদ রাজপুত, রাজু কুলকার্নি এবং সামির দিঘে। সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) নির্বাচক পদের জন্য সাক্ষাৎকার নেবেন তারা। এই সাক্ষাৎকারে কতিপয় ব্যক্তিবর্গ শচিনের নাম ভাঙিয়ে প্রার্থীদের সুপারিশ করছেন বলে অভিযোগ লালচাঁদের।
এ বিষয়ে অভিযোগ করে বিজয় পাতিলকে দেয়া ই-মেইলে লালচাঁদ লিখেছেন, ‘আমরা শচিনকে শ্রদ্ধা করি। কিন্তু তার নাম যত্রতত্র ব্যবহার করে আমাদের ওপর চাপ প্রয়োগ করা হচ্ছে। বলা হচ্ছে, তিনি (শচিন) অমুক-তমুককে সুপারিশ করেছেন। কিন্তু শচিনের যদি এমন কোনো সুপারিশ থাকত, তিনি সরাসরি প্রেসিডেন্ট কিংবা সিআইসিকে তা বলতেন। আমরা তাকে ভালোভাবে চিনি। তিনি একজন আইকন এবং সবার শ্রদ্ধার পাত্র। আমি নিশ্চিত তার যদি কোনো পরামর্শ বা সুপারিশ থাকে, তাহলে সে বিষয়ে কথা বলার পূর্ণ অধিকার তার রয়েছে।’
একই ই-মেইলে বিসিসিআইয়ের অ্যাপেক্স কাউন্সিল সদস্য অমিত দানির নাম উল্লেখপূর্বক অভিযোগ করেছেন লালচাঁদ, ‘আমি পরামর্শ নিতে সবসময়ই আগ্রহী। যে কেউ পরামর্শ দিতে আসলে স্বাগতম। কিন্তু দানি আমাকে তো এটা বলতে পারে না যে, আমার অমুক-তমুককে নেয়া উচিৎ। এ কাজটা আমার ভালো লাগেনি। কেউ যদি নামগুলো জানতে চায়, আমি সেগুলো বলতে পারব। কিন্তু এখানে (ই-মেইলে) সেটা বলছি না আমি।’
তিনি আরও যোগ করেন, ‘এখন আমি বুঝতে পারছি মুম্বাই ক্রিকেট কেন অধঃপতনের দিকে। অ্যাপেক্স কাউন্সিলের সদস্য হিসেবে তারা জোর খাটিয়ে যেকোনো কিছু আদায় করে নিতে পারে। আমরা সিআইসি সদস্যরা এটা মেনে নিতে পারি না। আর এ কারণেই এজিএমের পক্ষ থেকে আমাদেরকে পূর্ণ স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে যেনো ক্রিকেটীয় বিষয়গুলো ভালোভাবে দেখভাল করতে পারি।’
তবে স্বাভাবিকভাবেই লালচাঁদের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অমিত দানি। টাইমস অব ইন্ডিয়াকে তিনি বলেছেন, ‘আমি কখনও কোনো প্রার্থীর নাম সুপারিশ করতে শচিন টেন্ডুলকারের নাম বলিনি। আমি কেনো এমনটা করব? কোনো ভুল কাজে কখনও তার নাম নেবো না আমি। তিনি যদি কিছু বলার কথা মনে করেন, সেটা সরাসরি এমসিএকেই বলতে পারেন। আমার মাধ্যমে তো বলার দরকার নেই। আমি মনে করি সিআইসির সঙ্গে এটা একটা ভুল বোঝাবুঝি। তাদের সঙ্গে কথা বলে এটি ঠিক করে নেবো আমি।’

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি