1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ১১:৪৯ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
অশ্লীলতার মামলায় খালাস পেলেন শিল্পা শেঠি নির্বাচন নিয়ে বিএনপির সুনির্দিষ্ট কোনো রূপরেখা নেই: কাদের প্রকাশ্যে এসে কাঁদতে কাঁদতে অনেক কথা বললেন পপি করোনায় আরও ১৭ মৃত্যু, শনাক্ত ১৫,৫২৭ নন-ক্লোজার এগ্রিমেন্টে ভ্যাকসিন কেনা হয়েছে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী ওমিক্রনের ঝুঁকি এখনো অনেক বেশি : ডব্লিওএইচও সমন্বিত ৫ ব্যাংকের নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত বিনামূল্যে টিকা দেওয়ার বিষয়টি অগ্রাধিকার দিয়েছি : প্রধানমন্ত্রী রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৬৬ নির্বাচন কমিশন গঠন বিলের রিপোর্ট সংসদে উত্থাপন প্রিয়াংকা মা হওয়ায় দুশ্চিন্তায় প্রযোজকরা নেদারল্যান্ডসকে হোয়াইটওয়াশ করল আফগানিস্তান ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস আজ অবশেষে অনশন ভাঙলেন শাবি শিক্ষার্থীরা ওমিক্রন প্রতিরোধী ফাইজারের নতুন টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু

শিক্ষা আন্দোলনের শহীদদের প্রতি মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন

রিপোর্টার
  • আপডেট : শনিবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১২০ বার দেখা হয়েছে

১৭ সেপ্টেম্বর মহান শিক্ষা দিবস উপলক্ষে আজ শুক্রবার সকাল ৯ টায় হাইকোর্ট মোড়ে স্থাপিত শিক্ষা অধিকার চত্বরে বাষট্টির শিক্ষা আন্দোলনে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করেছে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ। শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের সময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ, কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো: আল মামুন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি সনেট মাহমুদ, কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি রোমান হোসাইন, এম আমিনুল শিকদার, আনসার আলী, আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. এইউজেড প্রিন্স, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক এসএ সাব্বির, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক রাব্বী হাসান শাওনসহ প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন শেষে শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন শেষে বাংলাদেশ মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চ, কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো: আল মামুন বলেন, “সংগ্রাম ও ঐতিহ্যের মহান শিক্ষা দিবস ১৭ সেপ্টেম্বর। ১৯৬২ সালের এই দিনে পাকিস্তানি শাসন, শোষণ ও শিক্ষা সংকোচন নীতির বিরুদ্ধে লড়াই করতে গিয়ে শহীদ হন ওয়াজিউল্লাহ, গোলাম মোস্তফা, বাবুলসহ নাম না-জানা অনেকেই। তাঁদের স্মরণে এই দিনকে শিক্ষা দিবস হিসেবে পালন করা হয়। ১৯৬২ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের ছাত্রসমাজ কুখ্যাত শরীফ কমিশন পরবর্তীকালে হামিদুর রহমান শিক্ষা কমিশনের বিরুদ্ধে সারা দেশব্যাপী দুর্বার আন্দোলন গড়ে তুলেছিল। পরবর্তীতে এই ছাত্র আন্দোলন গণআন্দোলনে পরিণত হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের হাজার হাজার শিক্ষার্থীরা সেদিন সমাবেশে উপস্থিত হয়েছিল। সমাবেশ শেষে মিছিল বের হয়। মিছিলে পুলিশের গুলিতে অনেক ছাত্র সেদিন দেশের জন্য তাঁদের জীবন উৎসর্গ করেন এবং অনেকেই আহত হন। সেই থেকেই ১৭ সেপ্টেম্বর পালিত হয়ে আসছে ছাত্র সমাজের শিক্ষার অধিকার আদায়ের লড়াই-সংগ্রামের ঐতিহ্যের দিবস- ‘শিক্ষা দিবস’। বাংলাদেশ নামক ভুখণ্ডের অভ্যুদয়ের সাথে প্রত্যক্ষভাবে জড়িয়ে আছে শিক্ষার সার্বজনীন অধিকার আদায়ের এই আন্দোলন। শিক্ষা আন্দোলনের সকল শহীদরা প্রতিটি বাঙ্গালির হৃদয়ে আজীবন বেঁচে থাকবেন। নতুন প্রজন্মের জন্য তাঁরা অনুপ্রেরণা ও সাহসের মূর্ত প্রতীক।”

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি