1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ১০:৫১ অপরাহ্ন

শেরপুরের নকলায় উন্নত জাতের আলুর বাম্পার ফলন রফতানি হবে বিদেশে

আরএম সেলিম শাহী
  • আপডেট : বুধবার, ২৪ মার্চ, ২০২১
  • ৫২০ বার দেখা হয়েছে
শেরপুরঃ এবার শেরপুরের নকলার নারায়নখোলায় কয়েকটি উন্নত জাতের আলুর বাম্পার ফলন হয়েছে। এর মধ্যে সানসাইন, আটাডো ও এষ্টারিক্স জাতের আলুর প্রদর্শনী মূলক চাষ করেছে কৃষকরা। ফলনও ভাল। এখন চলছে ক্ষেত থেকে আলু উত্তোলন করে বিক্রয়ের প্রস্তুতি। বিএডিসির হিমাগারের কর্তৃপক্ষ বলছেন, এবারই প্রথম স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে নকলা থেকে আলূ বিদেশে রফতানি করা হবে। এতে আরো লাভবান হবেন কৃষকরা। ২৩ মার্চ মঙ্গলবার সরেজমিনে গেলে মাঠ দিবস ও স্থানীয় কৃষকদের কথা বলে ওঠে আসে এমন তথ্য।
জানা যায়, নকলার নারায়নখোলায় বিএসডিসি’র হিমাগারের বাস্তবায়নে উন্নত ২০টি আলু জাতের চাষ হয়। এর মধ্যে তিনটি আলুর জাতের আশাতীত ফলন হয়েছে। এসব আলুর টিউবারের রং চকচকে। এদের মধ্যে বেশি ফলন হয়েছে সানসাইন জাতের।এটি প্রতি একরে ফলন হয়েছে প্রায় ৪৮ মণ। সম্প্রতি বিএডিসি হিমাগারের উপ-পরিচালক (টিসি) আয়োজনে মাঠ দিবসে আলুর এসব জাতের ভাল ফলন দেখে আলু চাষের উজ্জল সম্ভাবনা দেখেন কৃষক ও বিএডিসি কর্মকর্তারা।
স্থানীয় কৃষকরা জানান, এক সময় প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও আলুর ন্যায্য মূল্য না পাওয়ায় কৃষকরা আলুর বদলে অন্য ফসলের চাষ করতো। এবার এসব জাতের ভাল ফলন দেখে আলু চাষে উদ্বোদ্ধ হচ্ছে চাষীরা। স্থানীয় আলু চাষী ছামিউল হক ও জয়েন উদ্দিন জানান,  ওইসব জাতের আলু চাষ করে ভাল ফলন ও দামও ভাল পেয়েছেন। আগামিতে তারা আরো বেশি জমিতে আলুর চাষ করবে বলে জানান। নকলা বিএডিসি হিমাগারের উপপরিচালক (টিসি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, প্রদর্শনী মূলক ২০ টি জাতের আলুর চাষ করা হয়েছে। এর মধ্যে ৩ টি জাতের আলুর ফলন খুবই ভাল হয়েছে। এসব আলু স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে রফতানি করা হবে করা হবে বলে জানান বিএসডিসি হিমাগারের এই কর্মকর্তা। বিএডিসি’র প্রকল্প পরিচালক (মাবীউকৃবিপ্র) মো. আবীর হোসেন বলেন,  সরকারের উদ্দেশ্য হলো কৃষি হবে বানিজ্যিক। যে কৃষিতে কৃষকরা লাভবান হবে সে কৃষিতেই যেতে হবে। আগের মতো আর চাষাবাদ করতে চাইনা। এখন রফতানি যোগ্য কৃষির চাষাবাদ হবে। এতে কৃষকরাও লাভবান হবে। দেশেও বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন হবে।
এবার নারায়নখোলা বিএসডিসি হিমাগারের বাস্তবায়নে প্রায় ৮শ হেক্টর জমিতে ২০টি জাতের আলুর প্রদর্শনী মূলক চাষ হয়েছে। এর মধ্যে তিনটি জাতের ফলন ভাল। এসব আলু দেখতে চকচকে। গ্রাহকদের সহজেই ক্রয়ে উদ্বোদ্ধ করবে। এ জন্য এবার এখান থেকেই বিদেশে রফতানি হবে আলু। ভাল ফলনের সাথে কৃষকরা দামও পাবে ভাল। এমনটাই প্রত্যাশা সকলের।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি