1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৫:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
ন্যাটোতে প্রবেশে ফিনল্যান্ড-সুইডেনকে আনুষ্ঠানিক অনুমোদন দিলেন বাইডেন খোলাবাজারে ডলারের দাম রেকর্ড ১১৯ টাকা ঢাকায় ওসির বিপুল সম্পদ: রিটকারীকে দুদকে আবেদন দিতে বললেন হাইকোর্ট বিয়ে না করে সন্তান জন্মদান: কিশোর-কিশোরীর অভিভাবককে তলব ক্যানসার গবেষণায় বাংলাদেশি গবেষকের সাফল্যে নোয়াখালীর ড. মো. জসিম কর ফাঁকি ও অর্থপাচার রোধে ‘কমন রিপোর্টিং স্ট্যান্ডার্ড’ অবলম্বন করুন: টিআইবি সুইস ব্যাংকে জমা অর্থের বিষয়ে সুনির্দিষ্ট কোনো ব্যক্তির তথ্য চায়নি বাংলাদেশ মার্চেই শেষ হবে সায়েদাবাদে আধুনিক বাস টার্মিনাল নির্মাণ: মেয়র তাপস বাংলাদেশের বিশেষ কোন দলকে সমর্থন করে না যুক্তরাষ্ট্র: রাষ্ট্রদূত সম্রাটের জামিন বাতিলের আদেশ বহাল

২৪ কোটি করোনার টিকা লাইনআপে রয়েছে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

রিপোর্টার
  • আপডেট : বুধবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৬৪ বার দেখা হয়েছে

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ২৪ কোটি করোনার টিকা লাইনআপে রয়েছে। এ টিকা আগামী বছরের মার্চ-এপ্রিলের মধ্যে আমরা পাব বলে আশা করছি।

আজ বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) হোটেল লা মেরিডিয়ানে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা কোভাক্সের মাধ্যমে বড় একটা লট পাব। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যখন বলবে তখনই ওরা দেবে। এটি কোভ্যাক্সের আওতায় আর সিনোফার্ম বিক্রি করেছে সেটি থেকে পাওয়া যাবে।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের দরকার ২৬ কোটি টিকা। আমরা ২৪ কোটি পাচ্ছি, আপাতত আমরা এটাতেই খুশি। এটা আগামী বছরের মার্চ-এপ্রিলের মধ্যে আসবে। যেহেতু আমরা টিকা লোকালি প্রডিউস করব আপাতত আমরা ২৪ কোটিতেই খুশি। আমরা আশা করি, এর মধ্যে আমাদের অধিকাংশ লোককে টিকার আওতায় আনতে পারব।’

রাশিয়ার টিকা নিয়ে অগ্রগতি রয়েছে কি-না জানতে চাইলে তিনি বলেন, রাশিয়ার টিকায় খুব একটা অগ্রগতি নেই। তবে আমরা কাজ করছি।

করোনাভাইরাসের টিকার এক ডোজ না নেওয়া সত্ত্বেও ব্রিটেন অন্য দেশের নাগরিকদের দেশটিতে আশ্রয় দিচ্ছে, অথচ বাংলাদেশি নাগরিকদের জন্য দেশটিতে প্রবেশে রেড লিস্ট রাখার বিষয়টি নিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

ড. মোমেন বলেন, ‘যারা এক ডোজ টিকাও নেয়নি তাদের তোমাদের দেশে আশ্রয় দিয়ে রেখেছ। আমাদের এখানে তোমাদের (ব্রিটিশ) যে নাগরিক আছে তাদের যেতে দাও। ভারতকে তারা রেড অ্যালার্ট করেনি, তাদের লোক মারা গেছে বেশি; সে অনুযায়ী আমাদের কম। আমাদের দেশে আফ্রিকান কোনো ভেরিয়েন্ট নেই। আমাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এ বিষয়টা রিপোর্টে বলা উচিত।’

রেড অ্যালার্টের বিরুদ্ধে বাংলাদেশবিরোধী কোনো শক্তি আছে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে মোমেন বলেন, ‘এটা আমি বলতে পারব না।’

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি