1. [email protected] : admin :
  2. [email protected] : জাতীয় অর্থনীতি : জাতীয় অর্থনীতি
বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৯:৫০ পূর্বাহ্ন

৪৫ বছর পর লাদাখে গুলি, পাল্টা ব্যবস্থা চীনের

রিপোর্টার
  • আপডেট : মঙ্গলবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৫৪৬ বার দেখা হয়েছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতীয় সৈন্যরা বহুল বিতর্কিত লাদাখের বিরোধপূর্ণ সীমান্ত এলাকা অতিক্রম করে টহলরত চীনা সৈন্যদের সতর্ক করতে ফাঁকা গুলি ছুড়েছে বলে অভিযোগ করেছে চীন। সোমবার লাদাখের প্যাংগং হ্রদের দক্ষিণ তীরে এ ঘটনা ঘটেছে।
চীনের সামরিক বাহিনীর এক মুখপাত্র বলেছেন, চীনা সৈন্যরা পাল্টা পদক্ষেপ নিতে বাধ্য হয়েছে। তবে কি ধরনের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছিল, সেটি পরিষ্কার করা হয়নি।
ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি বলছে, আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার না করার দ্বিপাক্ষিক সমঝোতা ভেঙে ৪৫ বছর পর চীন-ভারতের বিরোধপূর্ণ সীমান্তে প্রথমবারের মতো গুলির ঘটনা ঘটেছে।
গত কয়েক মাস ধরে প্রতিবেশি এ দুই দেশের সম্পর্ক ক্রমাগত অবনতি ঘটেছে। চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমসকে দেশটির সামরিক বাহিনী পিপলস লিবারেশন আর্মির মুখপাত্র ঝ্যাং শুইলি বলছে, লাদাখের প্যাংগং সো লেকের দক্ষিণ তীরের কাছে শিনপ্যাও পার্বত্য অঞ্চলে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা (এলএসি) অবৈধভাবে অতিক্রম করেছে ভারতীয় সৈন্যরা।
তিনি বলেন, ভারতের এই পদক্ষেপ দুই পক্ষের পৌঁছানো সমঝোতার গুরুতর লঙ্ঘন, এই অঞ্চলে উত্তেজনা ছড়িয়ে দিয়েছে…এ ধরনের পদক্ষেপ অত্যন্ত বিপজ্জনক। বিপজ্জনক কর্মকাণ্ড তাৎক্ষণিকভাবে বন্ধ করতে আমরা ভারতীয় পক্ষকে অনুরোধ জানিয়েছি।
তবে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত চীনের এই অভিযোগের ব্যাপারে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও বিবৃতি দেয়নি।
গত জুন থেকে লাদাখ সীমান্তে দুই দেশের সৈন্যদের মাঝে ব্যাপক উত্তেজনা তৈরি হয়। বিতর্কিত এই সীমান্তে চীনা-ভারতীয় সেনাবাহিনীর রক্তক্ষয়ী সংঘাত হয় গত ১৫ জুন। ওইদিন হাতাহাতি, কিল-ঘুষি লাথিতে ভারতের অন্তত ২০ সৈন্য নিহত হয়।
কয়েক দশকের মধ্যে প্রথম প্রাণঘাতী এই সংঘাতে চীনা সৈন্যরাও হতাহত হয়েছেন বলে দাবি করে ভারত। যদিও বেইজিং এ ব্যাপারে কোনও তথ্য প্রকাশ করেনি।
হিমালয় অঞ্চলে প্রতিবেশি দুই দেশের সীমান্ত বিরোধ কয়েক দশক ধরে চলে এলেও কোনও সমাধানে পৌঁছাতে পারেনি বেইজিং-দিল্লি। গত জুনের ওই সংঘাতের পর থেকে সামরিক ও কূটনৈতিক পর্যায়ে দফায় দফায় বৈঠক হলেও উত্তেজনা কমেনি; বরং সময়ে সময়ে উত্তেজনায় যুক্ত হয়েছে নতুন মাত্রা।

Please Share This Post in Your Social Media

এই বিভাগের আরো সংবাদ
© ২০২০ দৈনিক জাতীয় অর্থনীতি